জব্দ ব্রিটিশ পতাকাবাহী ট্যাংকারের ভিডিও ছেড়েছে ইরান

0
73

উপসাগরীয় এলাকায় জব্দ করা ব্রিটিশ পতাকাবাহী ট্যাংকার দ্য স্টেনা ইম্পিরোর নতুন ভিডিও প্রকাশ করেছে ইরান। ভিডিওতে ট্যাংকার জব্দ করার মুহূর্তের চিত্র উঠে এসেছে। আজ রোববার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়।

যুক্তরাজ্য ট্যাংকার জব্দকে ‘অবৈধ’ উল্লেখ করে ইরানকে তা মুক্ত করে দিতে বলেছে। ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট বলেছেন, এই ঘটনা (ট্যাংকার জব্দ) হরমুজ প্রণালিতে যুক্তরাজ্য ও আন্তর্জাতিক নৌ-চলাচলে নিরাপত্তার ক্ষেত্রে গুরুতর প্রশ্নের উদ্রেক করেছে।

বিশ্বের অত্যন্ত সংবেদনশীল জলসীমা হরমুজ প্রণালি। সেখান দিয়ে যাওয়ার সময় গত শুক্রবার ব্রিটিশ পতাকাবাহী একটি ট্যাংকার জব্দ করে ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ড।

ইরানের অভিযোগ, দ্য স্টেনা ইম্পিরো আন্তর্জাতিক সমুদ্রযাত্রা-সংক্রান্ত আইন লঙ্ঘন করেছিল। ট্যাংকারটি তিনটি নিয়ম ভেঙেছিল। ট্যাংকারটি জিপিএস বন্ধ করে রেখেছিল। প্রবেশমুখের দিকে না গিয়ে হরমুজ প্রণালির দিকে যাচ্ছিল। এবং সতর্কবার্তা অমান্য করছিল। এ কারণেই ট্যাংকারটিকে জব্দ করা হয়।

ট্যাংকারটির পরিচালনা প্রতিষ্ঠান স্টেনা বাল্ক বলেছে, ট্যাংকারটির আন্তর্জাতিক জলসীমা দিয়ে সব নিয়মকানুন মেনেই যাচ্ছিল।

ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেছেন, ট্যাংকারটি ওমান জলসীমায় ছিল। পরে ট্যাংকারটিকে ইরানের জলসীমার দিকে যেতে বাধ্য করা হয়। তাই ট্যাংকারটিকে জব্দ করা আন্তর্জাতিক আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

ট্যাংকার জব্দের ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট। তিনি ইরানকে হুমকি দিয়ে বলেছেন, ট্যাংকারটি অবিলম্বে ছেড়ে না দিলে তেহরানকে ‘ভয়াবহ পরিণতি’ ভোগ করতে হবে।

ট্যাংকার জব্দের বিষয়টি নিয়ে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পরে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট দাবি করেন, জিব্রাল্টারে ইরানের ট্যাংকার জব্দের প্রতিশোধ হিসেবে ইরান যুক্তরাজ্যের ট্যাংকার জব্দ করেছে। এই জব্দ অবৈধ।

ট্যাংকারটির পরিচালনা প্রতিষ্ঠান স্টেনা বাল্ক বলেছে, জব্দ ট্যাংকারের ২৩ ক্রু ভালো আছেন বলে তাদের জানানো হয়েছে।

শনিবার ইরানের প্রচার করা ভিডিও ফুটেজে দ্য স্টেনা ইম্পিরো ট্যাংকারটি জব্দ করার মুহূর্তটি দেখা যায়।

ভিডিওটি প্রকাশ করেছে ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ড সংশ্লিষ্ট ফারস নিউজ এজেন্সি। এতে দেখা যায়, উচ্চগতিসম্পন্ন একাধিক নৌযান ট্যাংকারটিকে ঘিরে ফেলেছে। তারপর হেলিকপ্টার থেকে মুখোশধারী বাহিনী দড়ি বেয়ে ট্যাংকারে নামছে।

উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে ব্রিটিশ মন্ত্রীরা গতকাল জরুরি বৈঠক করেন। এ ঘটনায় ইরানের এক জ্যেষ্ঠ কূটনীতিককে লন্ডনে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়।

ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরমি হান্ট জানিয়েছেন, সরকারের পদক্ষেপ বিষয়ে সবশেষ তথ্য কাল সোমবার এমপিদের জানানো হবে। পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার উপায় খুঁজে বের করাকেই তাঁরা অগ্রাধিকার দিচ্ছেন।

৪ জুলাই সিরিয়াগামী অপরিশোধিত তেলবাহী একটি ইরানি ট্যাংকারকে জিব্রালটারের জলসীমা থেকে জব্দ করে ব্রিটেনের রাজকীয় নৌবাহিনী। এ নিয়ে ইরান ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। ট্যাংকারটি ছেড়ে না দিলে পাল্টা ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছিল তেহরান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here